মৌলভীবাজারে বিএনসিসি’র স্বেচ্ছাসেবা কর্মসূচি অনুষ্ঠিত

মৌলভীবাজার প্রতিনিধি ।। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে বাংলাদেশ ন্যাশনাল ক্যাডেট কোর (বিএনসিসি) ময়নামতি রেজিমেন্টের আয়োজনে মৌলভীবাজারে অনুষ্ঠিত হলো স্বেচ্ছাসেবা কর্মসূচি।

রোববার (২৪ জানুয়ারি) প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে মৌলভীবাজার সরকারি কলেজে এই কর্মসূচির উদ্বোধন করেন জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মিছবাহুর রহমান।

অনুষ্ঠানে ময়নামতি রেজিমেন্টের রেজিমেন্ট কমান্ডার লেফটেন্যান্ট কর্ণেল সালাহউদ্দিন আল মুরাদের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মৌলভীবাজার সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর ড. মো. ফজলুল আলী।

স্বেচ্ছাসেবা কর্মসূচির অংশ হিসেবে এদিন সকাল ১০ টায় স্বাস্থ্যবিধি মেনে গণসচেতনতামূলক র‍্যালি অনুষ্ঠিত হয়। র‍্যালিতে অংশ নেয় মৌলভীবাজার সরকারি কলেজ, মৌলভীবাজার সরকারি মহিলা কলেজ, মৌলভীবাজার সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়, শ্রীমঙ্গল সরকারি কলেজ, শ্রীমঙ্গল ভিক্টোরিয়া সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়, দি বার্ডস রেসিডেন্সিয়াল মডেল স্কুল এন্ড কলেজের শতাধিক ক্যাডেটরা।

র‍্যালিটি মৌলভীবাজার সরকারি কলেজ থেকে শুরু করে শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে। এ সময় ক্যাডেটরা রাস্তায় জনসাধারণের মাঝে মাস্ক ও লিফলেট বিতরণ করে।




কমলগঞ্জে অনগ্রসর ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর মাঝে গরু ও খাদ্য বিতরণ

কমলকন্ঠ রিপোর্ট ।। মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জে অনগ্রসর ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর ১৩৪ জন সুফলভোগীর মাঝে ক্রস ব্রীড বকনা গরু ও দানাদার খাদ্য বিতরণ করা হয়েছে।

রোববার (২৪ জানুয়ারি) কমলগঞ্জ সরকারি মডেল উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে এসব বিতরণ করা হয়। সমতল ভূমিতে বসবাসরত ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর আর্থ সামাজিক ও জীবনমান উন্নয়নে সরকারের প্রাণি সম্পদ দফতরের উদ্যোগে অনুদান হিসেবে এ গরুগুলো দেওয়া হয়েছে।

কমলগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আশেকুল হকের সভাপতিত্বে ও প্রধান শিক্ষক মোশাহিদ আলীর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সাংসদ উপাধ্যক্ষ ড. মো. আব্দুস শহীদ।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন কমলগঞ্জ উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান অধ্যাপক মো. রফিকুর রহমান, জেলা প্রাণি সম্পদ কর্মকর্তা ডা. মো. আব্দুস ছামাদ, কমলগঞ্জ উপজেলা প্রাণি সম্পদ কর্মকর্তা ডা. মো. হিদায়াতুল্লাহ, কমলগঞ্জ পৌরসভার মেয়র মো. জুয়েল আহমেদ, উপজেলা পরিষদ মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান বিলকিস বেগম, উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি আছলম ইকবাল (মিলন), উপজেলা দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটির সভাপতি ইমতিয়াজ আহমেদ, মাধবপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সভাপতি আসীদ আলী প্রমুখ। 




কমলগঞ্জে নানা আয়োজনে মহান বিজয় দিবস পালিত

কমলকন্ঠ রিপোর্ট ।। মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জে নানা আয়োজনের মধ্যদিয়ে মহান বিজয় দিবস পালিত হয়েছে। দিনের শুরুতে স্থানীয় স্মৃতি সৌধে পুস্পস্তবক অর্পন করেছে সরকারী-বেসরকারী বিভিন্ন সংগঠন ও প্রতিষ্ঠান।

আজ (১৬ই ডিসেম্ব) বুধবার সকালে বিজয় দিবসে জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তান শহীদ মুক্তিযোদ্ধাদের প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধা জানাতে কমলগঞ্জ কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে সর্বস্তরের মানুষের ঢল নামে। সকাল ৬টা ৩০ মিনিটে ৩১ বার তোপধ্বনির মাধ্যমে দিবসের সূচনা হয়। এর পরপরই উপজেলা কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার বেদীতলে স্বাধীনতা যুদ্ধে নিহত শহীদদের উদ্দেশে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান স্থানীয় সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব উপাধ্যক্ষ ড. মোঃ আব্দুস শহীদের পক্ষে উপজেলা আওয়ামীলীগ, উপজেলা পরিষদ , উপজেলা প্রশাসন, কমলগঞ্জ থানা, আওয়ামীলীগ ও তার সকল অঙ্গ সংগঠন, জাতীয় পার্টি, কমলগঞ্জ পৌরসভা, কমলগঞ্জ প্রেসক্লাব, জাতীয় সাংবাদিক সংস্থা কমলগঞ্জ উপজেলা ইউনিট,মনিপুরী ললিতকলা একাডেমী, মৌলভীবাজার পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি কমলগঞ্জ, উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগ, অফিসার্স ক্লাব, উপজেলা স্কাউটস, কমলগঞ্জ সরকারী কলেজ, ভানুগাছ পৌর বাজার বনিক কল্যাণ সমিতি, ইলেক্ট্রিশিয়ান সমিতি কমলগঞ্জ, ডেকোরেটার্স কারিগর সমিতিসহ বিভিন্ন সামাজিক সাংস্কৃতিক সংগঠন।

দিবসের অন্যান্য কর্মসূচীর মধ্যে ছিল ভানুগাছ বাজারস্থ মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্সে জাতির পিতার ম্যুরালে, শমসেরনগর বিমানবন্দর বধ্যভূমি, কামোদপুর মুক্তিযোদ্ধাদের মাজার, দেওরা ছড়া চাবাগান বধ্যভূমি, বীরশ্রেষ্ট শহীদ সিপাহী হামিদুর রহমানের স্মৃতি সৌধে পুষ্পস্তবক অর্পণ। সকাল ৯টায় কমলগঞ্জ উপজেলা পরিষদ চত্তরে আনুষ্টানিক ভাবে জাতীয় পতাকা উত্তোলন। সকাল সাড়ে ১০টায় স্বাস্থ্যবিধি মেনে সীমিত আকারে জাতির পিতার স্বপ্নের সোনার বাংলা বিনির্মাণে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ধারণ ও ডিজিটাল প্রযুক্তি সরবোত্তম ব্যবহারের মাধ্রমে জাতীয় সমৃদ্ধি শীর্ষক আলোচনা সভা । শহীদ মুক্তিযোদ্ধাদের বিদেহী আত্মার মাগফেরাত / যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধাদের সুস্বাস্থ্য এবং জাতির শান্তি, সমৃদ্ধি, অগ্রগতি কামনা করে সকল মসজিদ,মন্দির, গীর্জাসহ অন্যান্য ধর্মীয় উপাসনালয়ে স্বাস্থ্যবিধি মেনে সীমিত আকারে বিশেষ মোনাজাত ও প্র্রার্থণা, এবং হাসপাতাল ও এতিম খানায় উন্নত খাবার ও মিষ্টি বিতরণ।




কমলগঞ্জে জাতির পিতার সম্মান অক্ষুন্ন রাখার দাবিতে সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের প্রতিবাদ সভা

ষ্টাফ রিপোর্ট ।। মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলা উপজেলা প্রশাসন জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ভাস্কর্য ভাঙার প্রতিবাদে ও জাতির পিতার মর্যাদা অক্ষুন্ন রাখর দাবিতে প্রতিবাদ সভা করেছে। শনিবার (১২ ডিসেম্বর) সকাল সাড়ে ১১ টায় “জাতির পিতার সম্মান, রাখবো মোরা অম্লান” এই শ্লোাগানকে সামনে রেখে উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে এই সভাটি অনুষ্ঠিত হয়। কমলগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার আশেকুল হকের সভাপতিত্বে প্রতিবাদ সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন সিলেটের অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার (রাজস্ব) মো: ফজলুল কবীর।

এ সময় কমলগঞ্জ উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) নাসরিন চৌধুরী, কমলগঞ্জ থানার ওসি মো: আরিফুর রহমান, উপজেলা শিক্ষা অফিসার সাইফুল ইসলাম তালুকদার, প্রাণীসম্পাদক কর্মকর্তা ডা: হেদায়েত উল্ল্যাহ, উপজেলা স্বাস্থ্য ও প: প: কর্মকর্তা ডা: এম, মাহবুবুল আলম ভূঁইয়া, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা শামসুন্নাহার পারভীনসহ উপজেলার বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা ও কর্মচারীগন উপস্থিত ছিলেন।
প্রতিবাদ সভায় বক্তারা বলেন, ম্বাধীনতার মহান স্থপতি, হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালী, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর সঙ্গে বাংলাদেশের পরিচয়ের ঐতিহাসিক বন্ধন। জাতির পিতার সম্মানের অবমাননাকারীরা কখনো বাংলাদেশের মঙ্গল চায় না। স্বাধীন সার্বভৌম বাংলাদেশে মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী কোটি কোটি মানুষ তা মেনে নিবেন না। যতদিন পৃথিবীর মানচিত্রে বাংলাদেশ থাকবে তত দিন জাতির পিতার অবদান চিরঅম্লান হয়ে থাকবে। কোন ভাবেই জাতির পিতার কোন ধরনের অবমাননা সহ্য করা হবে না।

বক্তারা আরো বলেন, বঙ্গবন্ধু কোন দলের নয়, তিনি দলমত, শ্রেণি-পেশা, ধর্ম-বর্ণ সবকিছুর উর্ধ্বে। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের দূরদর্শী, নিঃস্বার্থ ও সাহসী নেতৃত্বেও ফসল আজকের এই স্বাধীন বাংলাদেশ। এই স্বাধীন দেশে দাঁড়িয়ে, স্বাধীন ভূখন্ডের উপর দাঁড়িয়ে জাতির পিতার প্রতি অবমাননাকর বক্তব্য দেওয়া, কার্যকারিতা পরিচালনা কোনভাবেই করতে পারবেন না। যদি করার চেষ্টা করেন, তাহলে নিজেই নিজের কাছে দ্বিচারিণী হবেন, অসম্মানিত হবেন। যারা বাংলাদেশকে বিশ্বাস করেনা, স্বাধীনতাকে বিশ্বাস করেনা, আপনারা তাদেরকে বয়কট করুন, বিতাড়িত করুন।




কমলগঞ্জে আব্দুন নূর মাষ্টারের স্মরণে নাগরিক শোক সভা অনুষ্ঠিত

নিজস্ব প্রতিবেদক:
মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জে সদ্য প্রয়াত আব্দুন নূর মাষ্টার স্মরণে স্মরণ সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। বৃহস্পতিবার দুপুর ১২টায় পতনঊষার ইউনিয়নের আং নূর-সুরজাহান চৌধুরী উচ্চ বিদ্যালয় হলরুমে আব্দুন নূর মাষ্টার স্মরণসভা কমিটির আয়োজনে এ স্মরণ সভা অনুষ্ঠিত হয়।

স্মরণসভা কমিটির আহবায়ক প্রভাষক মো: আব্দুল আহাদের সভাপতিত্বে ও তরুণ সমাজকর্মী মিজানুর রহমান মিষ্টারের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন পতনঊষার ইউপি চেয়ারম্যান তওফিক আহমদ বাবু, অধ্যক্ষ মো; নুরুল ইসলাম, অধ্যক্ষ ফয়েজ আহমদ, ওয়ার্কার্স পার্টির কেন্দ্রীয় সদস্য কমরেড সিকন্দর আলী, লেখক-গবেষক আহমদ সিরাজ, এড. তাজুল ইসলাম আহাদ, অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক মাসুক মিয়া, আং রহিম মাষ্টার, কমরেড সাইফুর রহমান, প্রধান শিক্ষক নিখিল চন্দ্র দেবনাথ (বাবুল), মরহুমের ছেলে ইউপি সদস্য রিপন ইসলাম ময়নুল, প্রভাষক বয়তুল হক চৌধুরী, বদরুজ্জামান চৌধুরী, শিক্ষক আমিনুল ইসলাম চৌধুরী, ডা: রাকেস মোহান্ত, মৌলানা ময়নুল ইসলাম, মৌলানা মাহমুদুর রহমান, সানুর আহমদ, ছাত্রনেতা এইচ আই ইমন প্রমুখ।

স্মরণ সভায় বক্তারা বলেছেন, আং নূর মাষ্টার বেঁচে থাকবেন তাঁর কর্মের মাধ্যমে। তিনি এলাকার শিক্ষার প্রসারে কাজ করেছেন আমত্যু। তাঁর কাজের মাধ্যমে বেঁচে থাকবেন তিনি।




কমলগঞ্জে কৃষকদের মধ্যে সবজি বীজ বিতরণ

কমলকন্ঠ রিপোর্ট ।।

মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ পৌর এলাকায় করেনা মহামারি ও অতিবৃষ্টির কারণে ক্ষতিগ্রস্থ কৃষকদের মধ্যে বিভিন্ন প্রজাতির শাকসবজির বীজ বিতরণ করা হয়েছে। মঙ্গলবার (১০ নভেম্বর) সকাল ১০টায় গোপালনগর আর্দশ যুব সংঘের উদ্যোগে কমলগঞ্জ ডিজিটাল ডায়গনস্টিক সেন্টারের মিলনায়তনে কমলগঞ্জ পৌর এলাকার ৪৫ জন কৃষকদের মধ্যে বিভিন্ন প্রজাতির শাকসবজির বীজ বিতরণ করা হয়।

সাবেক ইউপি সদস্য আব্দুল সত্তারের সভাপতিত্বে বীজ বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন কমলগঞ্জ পৌরসভার মেয়র মো: জুয়েল আহমেদ। বিশেষ অতিথি ছিলেন কমলগঞ্জ পৌরসভার কাউন্সিলর মো: রমুজ মিয়া, কাউন্সিলর দেওয়ান আব্দুর রহিম মুহিন। অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন গোপালনগর আর্দশ যুব সংঘের সভাপতি জসিম উদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক মছব্বির মিয়া, কৃষক তেরা মিয়া, আব্দুল আজিজ, উস্তার মিয়া প্রমুখ।




অনলাইন নিউজ পোর্টালের নিবন্ধন ফি ১০ হাজার টাকা

অনলাইন ডেস্ক ।।

পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত অনলাইন নিউজ পোর্টালের নিবন্ধন ফি ১০ হাজার টাকা নির্ধারণ করেছে সরকার। রোববার (১৩ সেপ্টেম্বর) রাতে তথ্য মন্ত্রণালয় এ সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপন জারি করেছে।

প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছে, ‘পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত অনলাইন নিউজ পোর্টালের নিবন্ধন, স্থাপন ও পরিচালনার জন্য নিম্নবর্ণিত ফি নির্ধারণ করা হলো। নিবন্ধন ফি ১০ হাজার টাকা, প্রতিবছর নিবন্ধন নবায়ন ফি ৫ হাজার টাকা, এক মাসের মধ্যে পরিশোধ করলে সারচার্জ ২ হাজার টাকা ও এক মাসের মধ্যে পরিশোধ না করলে সারচার্জ ৫ হাজার টাকা।’

গত ৩০ জুলাই প্রথম ধাপে ৩৪টি অনলাইন নিউজ পোর্টালকে নিবন্ধনের অনুমতি দেয় তথ্য মন্ত্রণালয়। ৩ সেপ্টেম্বর ঢাকা মহানগর ও বিভাগীয় শহরের ৯২টি দৈনিক পত্রিকার অনলাইন ভার্সনকেও নিবন্ধনের অনুমতি দেওয়া হয়।

প্রথম ধাপে ৩৪টি অনলাইন পোর্টালকে নিবন্ধনের অনুমতি দেওয়ার পর পোর্টালের নিবন্ধন ও পরিচালনার জন্য ফি নির্ধারণ করে তা অর্থ বিভাগে পাঠায় তথ্য মন্ত্রণালয়। এর পরিপ্রেক্ষিতে অর্থ বিভাগ নিবন্ধন ফি ১০ হাজার টাকা নির্ধারণ করে।

জাতীয় অনলাইন গণমাধ্যম নীতিমালা-২০১৭ (সংশোধিত, ২০২০) এর ২.১ এর এক অনুচ্ছেদ মোতাবেক কমিশন গঠন না হওয়া পর্যন্ত তথ্য অধিদপ্তরকে নিবন্ধন দেওয়ার ক্ষমতা দেবে তথ্য মন্ত্রণালয়।




কমলগঞ্জ উপজেলা পুষ্টি সমন্বয় কমিটির দ্বি-মাসিক সভা অনুষ্ঠিত

কমলকন্ঠ রিপোর্ট ।।

খাদ্যের কথা ভাবলে, পুষ্টির কথা ভাবুন’ এই প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে বহুখাতভিত্তিক পুষ্টি কার্যক্রম বাস্তবায়নে মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলা পুষ্টি সমন্বয় কমিটির দ্বি-মাসিক সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

বুধবার (১৬ সেপ্টেম্বর) দুপুর ২টা ৩০মিনিটে উপজেলা পরিষদ সভাকক্ষে উপজেলা প্রশাসন ও উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগ, কমলগঞ্জ এ সভার আয়োজন করে। সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সাবেক চিফ হুইপ ও অনুমিত হিসাব সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সভাপতি উপাধ্যক্ষ ড. মো. আব্দুস শহীদ এমপি।

বিজ্ঞাপন কমলগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আশেকুল হকের সভাপতিত্বে আলোচনায় অংশ নেন উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. এম, মাহবুবুল আলম ভূঁইয়া, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান রামভজন কৈরি, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান বিলকিস বেগম, কমলগঞ্জ পৌরসভার মেয়র মো. জুয়েল আহমদ,

কমলগঞ্জ থানার ওসি আরিফুর রহমান, উপজেলা বিআরডিবির সাবেক চেয়ারম্যান ইমতিয়াজ আহমেদ বুলবুল, রহিমপুর ইউপি চেয়ারম্যান ইফতেখার আহমেদ বদরুল, আদমপুর ইউপি চেয়ারম্যান মো. আবদাল হোসেন, পতনঊষার ইউনিয়নের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান নারায়ণ মল্লিক সাগর,

প্রভাষক শাহাজান মানিক, কমলগঞ্জ প্রেসক্লাব সভাপতি বিশ্বজিৎ রায়, সাংবাদিক প্রনীত রঞ্জন দেবনাথ, সিএনআরএস সূচনা প্রকল্পের নিউট্রেশন অফিসার এবিএম মোয়াজ্জেম হোসেন, সেভ দ্যা চিলড্রেন এর টেকনিক্যাল ম্যানেজার ফাতেমা কানিজ প্রমুখ।




জুড়ীতে পৃথকপৃথক ঘটনায় ২জনের আত্মহত্যা!

কমলকন্ঠ রিপোর্ট ।।

মৌলভীবাজারের জুড়ীতে মায়ের সাথে অভিমান করে পুত্র বিষপানে আত্মহত্যা করার খবর পাওয়া গেছে। ঘটনাটি শনিবার সন্ধ্যায় উপজেলার জায়ফরনগর ইউনিয়নের গৌরীপুরে ঘটেছে।

জানা যায়, ময়না মিয়ার পুত্র রায়হান মিয়া (২০) গৌরীপুর গ্রামে মায়ের সাথে নানার বাড়ীতে থেকে নির্মাণ শ্রমিকের কাজ করত। শনিবার বিকেলে বিভিন্ন কারণে মা তাকে বকাঝকা করেন।

এতে মায়ের সাথে অভিমান করে সন্ধ্যায় বাড়ির পাশেই কীটনাশক পান করে। গুরুতর অবস্থায় রাত সাড়ে ৮টায় তাকে কুলাউড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কেন্দ্রের নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক রায়হানকে মৃত ঘোষণা করেন।

খবর পেয়ে জুড়ী থানার পুলিশ হাসপাতাল থেকে লাশ এনে ময়নাতদন্তের জন্য মৌলভীবাজার ২৫০ শয্যা হাসপাতালের মর্গে প্রেরণ করে। জুড়ী থানার ওসি সঞ্জয় চক্রবর্তী বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

অন্যদিকে আগেরদিন শুক্রবার সন্ধ্যায় একই গ্রামের সিরাই মিয়া নামে ৬০ বছরের এক বৃদ্ধ পারিবারিক অশান্তিতে বিষপানে আত্মহত্যা করেন বলে এলাকাবাসী জানান।




অশ্লিল, অনৈতিক কার্যক্রমে জড়িতদের শাস্তির দাবিতে মৌলভীবাজারে মানববন্ধন

কমলকন্ঠ রিপোর্ট ।।

মৌলভীবাজারের সেই সামাজিক মাধ্যমে ও প্রকাশ্যে মাদক সেবনের স্বীকারোক্তি প্রদানকারীদের বিচারের আওতায় আনা ও শহরকে মাদক মুক্ত করার দাবীতে বৃহস্পতিবার শহরে মানববন্ধন এবং স্মারকলিপি প্রদান অনুষ্টিত হয়েছে।
উল্রেখ্য যে, গত ৩ আগস্ট রাতে শহরের সুনাপুর এলাকায় স্থানীয় সাংবাদিক মাহমুদ এইচ খান তার বাসায় বন্ধুদের নিয়ে মদ ও গাঁজা পার্টির আসর বসান। ওই সময়ে সেখানে উপস্থিত তাদের এক বান্ধবী ধর্ষনের শিকার হন ।
গত ২৫ আগস্ট মাহমুদ এইচ খান তার ফেইসবুক স্ট্যাটাসে পার্টিতে বন্ধু সজিব কর্তৃক তার বান্ধবীকে জোর করে ধর্ষণের অভিযোগ তুলেন। পর দিন ২৬ আগস্ট সজিব ধর্ষণের কথা অস্বীকার করে মেয়েটির ইচ্ছাতেই সব হয়েছে বলে পাল্টা পোষ্ট দেয়। এ নিয়ে সামাজিক মাধ্যমে ব্যাপক তোলপাড় শুরু হয় মৌলভীবাজার জুড়ে। এরই প্রতিবাদে বিভিন্ন সামাজিক সংগঠনের ডাকে বৃহস্পতিবার শহরে মানববন্ধন এবং স্মারকলিপি প্রদান অনুষ্টিত হয়েছে।
মানববন্ধন ও পথসভায় বক্তব্য রাখেন, সচেতন নাগরিক সমাজের সভাপতি মোয়াজ্জেম হোসেন মাতুক, জেলা যৌন হয়রানী নির্মূল কমিটির সভাপতি রাশেদা বেগম, সম্মিলিত সামাজিক উন্নয়ন পরিষদের সভাপতি খালেদ চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক আলীম উদ্দিন আলীম, শেখ বুরহান উদ্দিন (রহ:) ইসলামী সোসাইটির চেয়ারম্যান এম মুহিবুর রহমান মুহিব, বাঁধন থিয়েটারের সভাপতি রুহেল আহমদ, সমাজসেবক কে,এম,আকলু, তরুণসমাজকর্মী মিজানুর রহমান রাসেল, আদর মাদকাসক্তি পূনর্বাসন কেন্দ্রের পরিচালক নিখিল তালুকদার প্রমুখ।

বক্তারা বলেন, মৌলভীবাজার শহর শান্তিপূর্ণ শহর। মাদক ও ধষর্নের ব্যাপারে সরকার যেখানে জিরো টলারেন্স নীতি ঘোষনা করেছেন সেখানে প্রশাসনের নাকের ডগায় এরকম একটি ঘটনায় বিস্মিত জেলার সর্ব স্তরের মানুষ। হযরত সৈয়দ শাহ মোস্তফা (রহঃ) পূন্যভূমিতে এই বেহায়াপনা, অশ্লিল, অনৈতিক কার্যক্রম কোনভাবেই সহ্য করা যায়না। এখানে মাদকের আসর বসিয়ে মদ্যপ অবস্থায় ধর্ষনের মত ঘটনা ঘটিয়ে তা নিজেদের ফেসবুকে প্রচার করার যে দু:সাহস যারা দেখিয়েছে তাদেরকে অবিলম্বে গ্রেফতারপূর্বক দৃষ্টান্তমুলক শাস্তি দিতে হবে। অন্যথায় জেলার সর্বস্থরের মানুষকে নিয়ে কঠোর আন্দোলনের মাধ্যমে দাবি বাস্তবায়ন করা হবে।

মৌলভীবাজার মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ইয়াছিনুল হক জানিয়েছেন, এই ঘটনায় ৩১ আগস্ট পৃথক দু’টি মামলা হয়েছে। ইতিমধ্যে এক আসামী রায়হান আনছারী সজিবকে আটক করে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে। বাকী আসামীদের আটকে পুলিশ তৎপর রয়েছে। এছাড়া গোয়েন্দা তথ্যের আলোকে শহরের বিভিন্ন এলাকায় মাদক ও অনৈতিক কার্যকলাপ ঘটে এমনসব স্থান চিহ্নিত করে অভিযান চালানোরও সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।