Logo
সংবাদ শিরোনাম :
কমলগঞ্জে বঙ্গমাতা`র জন্মবার্ষিকীতে মহিলা অধিদপ্তরের সেলাই মেশিন বিতরণ দুর্বৃত্তদের আগুনে পুড়ে ছাই ধলই চা বাগানের অর্ধশত বছরের সব নথিপত্র কমলগঞ্জে মাদকদ্রব্যের অপব্যবহার রোধকল্পে কর্মশালা লন্ডন যাওয়া হলো না সাইফের ! কমলগঞ্জে আজকের পত্রিকার ১ম বর্ষপুর্তি পালিত সোয়া দুই বছর পর চাতলাপুর অভিবাসন কেন্দ্র দিয়ে ভারত-বাংলাদেশ যাত্রী পারাপার শুরু কমলগঞ্জে বৃক্ষরোপন কর্মসূচীর উদ্বোধন বকেয়া  ভাতার দাবীতে আর্সেনিক কর্মীদের জঃ প্রকৌশলীর অফিস ঘেরাও ।। নির্বাহী কর্মকর্তার নিকট স্বারকলিপি পেশ কমলগঞ্জে মাদকদ্রব্যের অপব্যবহার ও অবৈধ পাচারবিরোধী দিবস উদযাপন আল আমিন প্লাজায় দুঃসাহসিক চুরি

শ্রীমঙ্গলে হাইব্রিড লাউ সুলতানার বাম্পার ফলন

রিপোটার : / ৯১ বার দেখা হয়েছে
প্রকাশিত : বৃহস্পতিবার, ২৭ জানুয়ারী, ২০২২

image_pdfimage_print

কমলকন্ঠ ডেস্ক।। শ্রীমঙ্গলে অধিক ফলনশীল ও আকর্ষণীয় হাইব্রিড লাউ সুলতানার বাম্পার ফলন হয়েছে। এই উচ্চ ফলনশীল এ বীজ সরবরাহ করে লালতীর সীড। বিঘা প্রতি হাইব্রিড লাউ সুলতানার উৎপাদন হয় ৪৫ থেকে ৫০ টন। যা এলাকায় চমক সৃষ্ঠি করেছে।

শ্রীমঙ্গল উপজেলার আশিদ্রোন ইউনিয়নের বনগাঁও গ্রামের কৃষক ইমাম হোসেন এবছর প্রথমবার এটি চাষ করেন।  তার ৩৩ শতাংশ জমিতে প্রথম বারের মত পরীক্ষা মূলক শুরু করেন লালতীর এর হাইব্রিড জাতের লাউ সুলতানা চাষ।

২৭ জানুয়ারী বৃহস্পতিবার সরজমিনে দেখা যায়, তার লাউ গাছে এখন ঝুলছে সারি সারি লাউ। কোনটা বড় কোনটা মাঝারী কোনটা  ছোট আছে অনেক ফুল। লাউগাছের ফুলের যেমন হাসি বাম্পার ফলনে কৃষক ইমামের মুখেও লেগে রয়েছে সেই হাসি।

কৃষক ইমাম হোসেন  জানান, চারা লাগানোর ৫৫ দিনের মাথায় গাছে ফল আসা শুরু করে। ওজনে লাউ গুলো কোনটা ৩ কেজি ৪ কেজি। ৩৩ শতাংশ জমিতে লাউ চাষ করতে খরচ হয়েছে ৩ হাজার টাকার মতো। আর এখন মাঠ থেকে প্রতি পিছ লাউ বিক্রি করেছেন ৫০ থেকে ৫৫ টাকা মূল্যে। এখন পর্যন্ত  প্রায় ৪০ হাজার টাকার লাউ বিক্রি করেছেন

তিনি আরো জানান, এ সময়ে বাজারে লাউয়ের চাহিদা বেশি থাকে। তাই স্থানীয় বাজারে লাউয়ের চাহিদাও ভালো। স্থানীয়রা বাগানে এসেও লাউ ক্রয় করে নিচ্ছেন। এমন উৎপাদন অব্যাহত থাকলে তিনি প্রায় লক্ষাধিক টাকার উপরে হাইব্রিড লাউ সুলতানা বিক্রি করতে পারবেন বলে আশাবাদী।

এখানকার স্থানীয় কৃষক সুকুমার কপালী জানান, হাইব্রিড লাউ চাষ শুরু করার অল্প সময়ে ফল আসে। সুলতানার এই বাম্পার ফলন দেখে গ্রামের অন্যান কৃষকের মাঝে ব্যাপক উৎসাহ তৈরি হয়েছে। তার এর চাষ করার পরিকল্পনা করছেন।

হাইব্রিড লাউ সুলতানা বীজ এর উৎস প্রতিষ্ঠান লাল তীর সীড লিমিটেড এর অঞ্চলিক ব্যবস্থাপক তাপস চক্রবর্তী জানান,সুলতানা অধিক ফলনশীল আকর্ষণীয় ও এদেশের আবহাওয়া ও জলবায়ুতে সহনশীল। লাউটি হালকা সবুজ এবং লম্বায় ৫০ সেন্টিমিটার। আমাদের নিজস্ব উৎপাদিত একটি লাউয়ের জাত এটি। কৃষকদের জন্য অনেকটাই আর্থিকভাবে লাভজনক এবং সারা বছর চাষ করা যায়। যার বিঘা প্রতি সুলতানার উৎপাদন হয় ৪৫ থেকে ৫০ টন।

শ্রীমঙ্গল উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা নিলুফার ইয়াসমিন মুনালিসা সুইটি জানান, হাইব্রিড সুলতানা চাষ করে কৃষক অল্প সময়ে লাভবান হয়েছেন। পরীক্ষন খামারে এটি প্রমানিত হয়েছে। এটি দেখে এখন অনেক কৃষক লাউ চাষে আগ্রহী হয়ে ওঠেছেন। কৃষি বিভাগের পক্ষ থেকে চাষীদেও লাউচাষসহ বিভিন্ন প্রশিক্ষন দেওয়া হচ্ছে।


আরো সংবাদ পড়ুন...

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
৩১  
Developed By Radwan Ahmed