Logo

অকাল বৃষ্টিতে আমন ধান ও শীতকালীন সবজির ক্ষতির আশঙ্কা করছেন কৃষকরা

রিপোটার : / ১৫৫ বার দেখা হয়েছে
প্রকাশিত : বুধবার, ৮ ডিসেম্বর, ২০২১

image_pdfimage_print

কমলকন্ঠ রিপোর্ট ।।

কমলগঞ্জ উপজেলায় নিম্নচাপের প্রভাবে তিন দিনের গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টিতে আমন ধান ও রবি ফসল নিয়ে বিপাকে কৃষক। বৃষ্টির কারণে অনেক কৃষক জমি থেকে শেষ সময়ের আমন ধান উত্তোলন করতে না পারায় দুঃশ্চিন্তায় আছেন। কৃষকরা জানান, এখন আমন উত্তোলনের শেষ সময়ের ধুম চলছে। কিন্তু নিম্নচাপের কারণে গেল তিন দিনের বৃষ্টিতে ধান কাটা, মাড়াই, ধান শুকানোতে অনেক সমস্যা হচ্ছে। বৃষ্টির কারণে তাঁদের খেতের আমন পাকা ধান মাটিতে শুয়ে পড়েছে। শুধু আমন ধান নয়, রবি ফসল নষ্ট হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। আবহাওয়া অফিস বলছে আরও দুদিন গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি হতে পারে।

উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর সুত্রে জানা যায়, চলতি বছরে কমলগঞ্জ উপজেলায় ১৭ হাজার ২৭০ হেক্টর জমিতে আমন চাষ করা হয়েছে। কৃষকেরা প্রায় ৬০ শতাংশ ধান ঘরে তুলেছেন। এছাড়াও ১৫৮০ হেক্টর জমিতে শীতকালীন সবজি ও ৫২৫ হেক্টর জমিতে আলু চাষ করা হয়েছে। অতিরিক্ত বৃষ্টিতে ধানের তেমন ক্ষতি না হলেও তবে বৃষ্টির পানিতে জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হলে সবজির ক্ষতি হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে।

কমলগঞ্জ উপজেলার মাধবপুর ইউনিয়নের কৃষক শাকের আলী বলেন, আমি ৪ একর জমির মধ্যে ২ একর আমন ধান ঘরে তুলেছি। আরও দুই একর জমি কর্তন করার বাকি রয়েছে। বৃষ্টির কারণে গেল দুইদিন ধরে ধান ঘরে তুলতে পারছিনা। জানিনা কি পরিমাণ ক্ষতি হবে।

পতনঊষার ইউনিয়নের কৃষক হেলাল উদ্দিন বলেন, ১ একর জমির ধান বৃষ্টির জন্য মাড়াই করে বাড়িতে আনতে পারেনি। এরকম যদি আরও কয়েকদিন বৃষ্টি হতে থাকে তাহলে আমাদের অনেক ক্ষতি হবে।

শ্রীমঙ্গল আবহাওয়া পর্যবেক্ষণ কেন্দ্রের কর্মকর্তা আনিসুর রহমান জানান, ঘূর্ণিঝড় জাওয়াদের প্রভাবে গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি হচ্ছে। আগামী দুদিন এইরকম বৃষ্টি হতে পারে। এছাড়াও বৃষ্টির সাথে সাথে শীতের তীব্রতাও বৃদ্ধি পেতে পারে।

কমলগঞ্জ উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা জনি খান জানান, বৃষ্টির কারণে আমন ধানের তেমন কোন ক্ষতি হবেনা। অতিরিক্ত ভারি বৃষ্টি হলে ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ বেশি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। তবে বৃষ্টির পানিতে জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হলে শীতকালীন সবজি ক্ষতি হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে।


আরো সংবাদ পড়ুন...

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২
১৩১৪১৫১৬১৭১৮১৯
২০২১২২২৩২৪২৫২৬
২৭২৮২৯৩০৩১  
Developed By Radwan Ahmed