Logo
সংবাদ শিরোনাম :
কাল বসন্ত পঞ্চমী, এই দিনটির তাৎপর্য ও ইতিহাস কমলগঞ্জে শেখ কামাল আন্ত:স্কুল ও মাদ্রাসা অ্যাথলেটিকস প্রতিযোগিতা কমলগঞ্জে বীরশ্রেষ্ঠ হামিদুর রহমান ক্রিকেট চ্যাম্পিয়নশীপস এর উদ্বোধন কমলগঞ্জে ব্যবসায়িক দ্বন্দ্বে ছুরিকাঘাতে আহত যুবকের মৃত্যু কমলগঞ্জে কিশোরী ক্লাবের ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান কমলগঞ্জে সাঁওতালদের ঐতিহ্যবাহী ‘সোহরাই’ উৎসব অনুষ্ঠিত কমলগঞ্জে সারথী কথামৃত’র বিশেষ ক্রোড়পত্রের মোড়ক উন্মোচন মৌলভীবাজারে ‘শব্দচর’’ সাহিত্য পত্রিকার প্রকাশনা উৎসব কমলগঞ্জে সপ্তাহব্যাপী নৃত্য প্রশিক্ষণ কর্মশালার উদ্বোধন কমলগঞ্জ প্রেসক্লাবে প্রবাসী কল্যাণ পরিষদের আর্থিক অনুদান প্রদান

মৌলভীবাজারে একদিনেই পেঁয়াজের দাম প্রায় দ্বিগুণ!

রিপোটার : / ৪৭৩ বার দেখা হয়েছে
প্রকাশিত : মঙ্গলবার, ১৫ সেপ্টেম্বর, ২০২০

image_pdfimage_print

কমলকন্ঠ রিপোর্ট ।।

বাংলাদেশে ভারত হঠাৎ করে পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধ করে দেয়ার ঘোষণায় একদিনেই পেঁয়াজের দাম প্রায় একশ’ তে বিক্রি হচ্ছে। মৌলভীবাজারের বিভিন্ন খুচরা বাজারে রাতারাতি রান্নায় মসলাজাতীয় এ পণ্যটির দাম বেড়ে গেছে।

পেঁঁয়াজের দাম বাড়ার খবরে গতকাল সোমবার থেকে জেলার শহর ও গ্রামের লোকজন দোকান থেকে বেশি বেশি পেঁয়াজ কিনতে শুরু করেছেন।
এ সুযোগে খুচরা বিক্রেতারা একদিনের ব্যবধানে কেজিতে ২৫ থেকে ৩০ টাকা বাড়িয়ে দেশী পেঁয়াজ ৯৫ থেকে ১শ’ টাকায় বিক্রি করছে। পেঁয়াজের বাড়তি দামে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন ক্রেতারা। তারা বলছেন, করোনাকালে এ যেন মরার উপর খাড়ার ঘাঁ। বাজারে এখনও পেঁয়াজের সংকট না হলেও আড়তাররা পেঁয়াজের কৃত্রিম সংকট দেখিয়ে দাম বাড়িয়ে দিয়েছে। আর খুচরা বাজারে তা লাফিয়ে দ্বিগুণ হয়ে গেলো।
জানা যায়, মঙ্গলবার (১৫ সেপ্টেম্বর) জেলার শ্রীমঙ্গলের আড়ত গুলোতে পেঁয়াজের কৃত্রিম সংকট দেখিয়ে দাম বাড়িয়ে বিক্রি করছেন। আর মোবাইলে এ খবর জেনে জেলার বিভিন্ন বাজারে একদিনেই ৪৫-৫০ টাকার পেঁয়াজ খুচরা বাজারে ৯৫-১০০ টাকায় বিক্রি করেছেন। দু’দিন আগেও এ পেঁয়াজ বিক্রি হয়েছিল প্রতি কেজি ৪৫ টাকায় আর ছোট পেঁয়াজ বিক্রি হয়েছিল ৫০ থেকে ৬০ টাকায়।
মাত্র একদিনের ব্যবধানে আমদানি করা ভারতীয় পেঁয়াজের দাম কেজিতে ৩০ টাকা পর্যন্ত বেড়েছে । বর্তমানে আমানি করা পেঁয়াজ বাজারে বিক্রি হচ্ছে কেজি ৭৫-৮০ টাকায়। জেলা সদর ও বিভিন্ন উপজেলার খুচরা বাজাওে প্রায় দ্বিগুণ দামে পেঁয়াজ বিক্রি হতে খো গেছে।


আরো সংবাদ পড়ুন...

আর্কাইভ

Developed By Radwan Ahmed