Logo
সংবাদ শিরোনাম :
মণিপুরীদের ঐতিহাসিক ‘চহি তারেৎ খুনতাকপা’ দিবস উদযাপন প্রেসক্লাব সভাপতির পুত্র শৈবালে‘র ট্যালেন্টপুলে বৃত্তি লাভ কমলগঞ্জে বোরো চাষের জন্য কৃষকের উদ্যোগে ক্রসবাঁধ নির্মাণ সিপিএসটি-২০ প্রাইজমানি ক্রিকেট টুর্ণামেন্টে হবিগঞ্জ চ্যাম্পিয়ন কিশোরকণ্ঠ মেধাবৃত্তি পরীক্ষা ২০২৩ এর ফল প্রকাশ কমলগঞ্জে ইয়াবাসহ মাদক ব্যবসায়ী আটক রসুলপুরে নৌকার নির্বাচনী মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত আম্বিয়া কিন্ডারগার্টেন স্কুলে অভিভাবক দিবস পালন। কমলগঞ্জে পূর্ব শক্রতার জের ধরে হামলা; ৩ জনকে আটক করে গণপিটুনি মৌলভীবাজারে তৃণমূল পর্যায়ে সরকারি সেবার মানোন্নয়নে গণশুনানি বড়দিন উৎসবকে ঘিরে কমলগঞ্জের ৪৪টি গির্জায় চলছে প্রস্তুতি সাবেক চেয়ারম্যান আব্দুল মছব্বির স্মরণে আলোচনা সভা কমলগঞ্জে ভোটগ্রহণ কর্মকর্তাদের প্রশিক্ষণ কর্মশালা পুলিশ এসল্ট মামলায় কমলগঞ্জে যুবদল নেতা পৌর কাউন্সিলর গ্রেপ্তার কমলগঞ্জে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে হামলা ও লুটপাটের অভিযোগ মৌলভীবাজারের ৪টি আসনে প্রতীক বরাদ্দের পর প্রচারণায় প্রার্থীরা দ্বাদশ জাতীয় নির্বাচনে মৌলভীবাজারের ৪টি আসনে প্রতিদ্বন্ধিতা করবেন ২০ জন প্রার্থী কমলগঞ্জে যুব ফোরাম গঠন যথাযোগ্য মর্যাদায় কমলগঞ্জে ৫২ তম বিজয় দিবস উদযাপন কমলগঞ্জে শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস পালিত

কমলগঞ্জে পূজোর আয়োজনঃ মণ্ডপগুলোতে শেষ মুহূর্তের ব্যস্ততায় মৃৎশিল্পীরা

রিপোটার : / ১৬৪ বার দেখা হয়েছে
প্রকাশিত : শনিবার, ১৪ অক্টোবর, ২০২৩

কমলকন্ঠ ডেস্ক ।।

দরজায় কড়া নাড়ছে সনাতন ধর্মাবলম্বীদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দুর্গোৎসব। আগামী ২০ অক্টোবর (শুক্রবার) মহাষষ্ঠীর মধ্য দিয়ে শুরু হবে শারদীয় উৎসব।

মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলায় দশভুজা দেবী দুর্গাকে বরণ করতে প্রস্তুত হচ্ছে পূজামণ্ডপগুলো। দুর্গোৎসবকে ঘিরে কমলগঞ্জের সর্বত্র চলছে ব্যাপক প্রস্তুতি ও মণ্ডপে মণ্ডপে চলছে প্রতিমা তৈরির শেষ মুহূর্তের কাজ।

ইতোমধ্যে উপজেলার অধিকাংশ পূজামণ্ডপে শেষ হয়েছে প্রতিমা তৈরির কাজ। এখন রঙ তুলির আঁচড়ে সৌন্দর্য বর্ধনের কাজ চলছে। মাটির কাজ শেষ করে রঙ-তুলির খেলায় প্রতিমাকে সজ্জিত করতে ব্যস্ত সময় পাড় করছেন মণ্ডপগুলোর মৃৎশিল্পীরা। মৃৎশিল্পীদের রাত দিনের কাজ আর পূজা কমিটির ব্যস্ততা দুর্গোৎসবের জানান দিচ্ছে।

এ বছর কমলগঞ্জ উপজেলায় ১৪৬টি সার্বজনীন ও ১৭টি ব্যক্তিগত মণ্ডপে অনুষ্ঠিত হবে দুর্গাপূজা। উপজেলা ও পুলিশ প্রশাসনের পক্ষ থেকে নেয়া হয়েছে ব্যাপক নিরাপত্তার প্রস্তুতি।

উপজেলার বিভিন্ন পূজা মণ্ডপ ঘুরে দেখা যায়, মাটির কাজ শেষ করে প্রতিটি প্রতিমাকে রঙ-তুলির নিপুণ আঁচড়ে রাঙাতে ব্যস্ত শিল্পীরা। চলছে সাজ-সজ্জার কাজও। দেবী দুর্গার সাথে সাজিয়ে তোলা হচ্ছে কার্তিক, গণেশ, লক্ষ্মী আর সরস্বতী দেবীকেও। যেন দম ফেলার ফুরসৎ নেই মৃৎশিল্পীদের।

এবারের পূজার প্রতিমায় ব্যতিক্রম আনার চেষ্টা করেছেন উপজেলার বেশ কয়েকটি পূজামণ্ডপ। দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতির কারণে বিগত বছরের তুলনায় এ বছর দুর্গোৎসবে দ্বিগুণ ব্যয় বৃদ্ধি পাওয়ায় কিছুটা হিমশিম খেতে হচ্ছে আয়োজকদের। এরপরও থেমে নেই কোন আয়োজন। রকমারি আলোক সজ্জার বর্ণালী বাহারে সাজানো হবে মণ্ডপ ও তার আশপাশ। হাতে আর কয়েকদিন বাকি। তাই রাত-দিন চলছে সাজ-সজ্জার কাজ।

উপজেলার মুন্সীবাজার ইউনিয়নের কুমারটেকি পালপাড়ার মৃৎশিল্পী অজিত রুদ্রপাল জানান, এ বছর তিনি ৯টি দুর্গা প্রতিমা তৈরির কাজ করছেন। সবকটি প্রতিমার মাটির কাজ প্রায় শেষ। এখন রঙ তুলির কাজ চলছে। ইতোমধ্যে ২টি প্রতিমার রঙের কাজ শেষ করেছেন। আগামী ৪-৫ দিনের মধ্যেই বাকি প্রতিমাগুলোর রঙের কাজ শেষ হয়ে যাবে বলে তিনি জানান।

মনোরঞ্জন পাল নামে আরেক মৃৎশিল্পী বলেন, বেশিরভাগ প্রতিমার মাটির কাজ শেষ করেছি। এখন রঙের কাজ চলছে। সব মিলিয়ে নির্ধারিত সময়ের আগেই কাজ শেষ করতে পারবেন বলে আশা প্রকাশ করেন তিনি।

কমলগঞ্জ উপজেলায় ১৪৬টি সার্বজনীন ও ১৭টি ব্যক্তিগত মণ্ডপসহ মোট পূজা মণ্ডপের সংখ্যা ১৬৩টি। এর মধ্যে কমলগঞ্জ পৌরসভায় ৮টি, ১নং রহিমপুর ইউনিয়নে ২০টি, ২ নং পতনউষার ইউনিয়নে ১৪টি, ৩নং মুন্সীবাজার ইউনিয়নে ১৬টি, ৪ নং শমসেরনগর ইউনিয়নে ১৪টি, ৫নং কমলগঞ্জ সদর ইউনিয়নে ৮টি, ৬নং আলীনগর ইউনিয়নে ২২টি, ৭নং আদমপুর ইউনিয়নে ১৩টি, ৮নং মাধবপুর ইউনিয়নে ২১টি ও ৯নং ইসলামপুর ইউনিয়নে ১০টি পূজামণ্ডপ রয়েছে।

কমলগঞ্জ উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি শ্যামল চন্দ্র দাশ ও সাধারণ সম্পাদক প্রনীত রঞ্জন দেবনাথ বলেন, শারদীয় দুর্গাপূজা আনন্দঘন ও শান্তিপূর্ণভাবে উদযাপনের লক্ষ্যে আমরা সর্বপ্রকার সর্তকতা অবলম্বন করছি। তাছাড়া ২০২১ সালের কমলগঞ্জে ঘটা অপ্রীতিকর ঘটনা ও আসন্ন দ্বাদশ সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে উপজেলা প্রশাসন ও পুলিশ প্রশাসনের পক্ষ থেকে বাড়তি নিরাপত্তা জোরদার করা হচ্ছে। আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর পাশাপাশি অধিকতর নিরাপত্তা জোরদারের জন্য প্রত্যেক মণ্ডপে মণ্ডপ কমিটির নিজ উদ্যোগে অধিক সংখ্যক স্বেচ্ছাসেবক রাখার জন্য অনুরোধ জানানো হয়েছে।

কমলগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ সঞ্জয় চক্রবর্তী জানান, কমলগঞ্জে সার্বজনীন ও ব্যক্তিগতসহ মোট ১৬৩টি পূজামণ্ডপে শান্তিপূর্ণ ভাবে পূজা উদযাপনের লক্ষ্যে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষায় পুলিশ প্রশাসনের পক্ষ থেকে সবধরনের প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে। সবকটি পূজামণ্ডপ এলাকায় আইন-শৃঙ্খলা জোরদার করা হয়েছে। পূজা মণ্ডপগুলোর নিরাপত্তা রক্ষায় পুলিশের ১০টি মোবাইল টিম ও আনসার বাহিনী পূজা চলাকালীন সার্বক্ষণিক কাজ করবে। তাছাড়া বাড়তি নিরাপত্তায় প্রতিটি মণ্ডপে সিসি ক্যামেরা বসানোর জন্য মণ্ডপ কমিটিগুলোকে বলা হয়েছে।

কমলগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জয়নাল আবেদীন বলেন, শারদীয় দুর্গোৎসব যাতে নির্বিঘ্নে সম্পন্ন হয় সেজন্য প্রশাসনের পক্ষ থেকে সর্বাত্মক নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। প্রতিটি পূজামণ্ডপে আনসার ও স্বেচ্ছাসেবক দায়িত্ব পাল করবে। পাশাপাশি পুলিশ, র‌্যাব ও বিজিবি সদস্যরা টহলে থাকবে।


আরো সংবাদ পড়ুন...
Developed By Radwan Ahmed